1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ০২:০০ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

শুভ জন্মদিন ড্যাশিং ওপেনার

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২০ মার্চ, ২০২৪
  • ৩৫ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্ট : দেশের ক্রিকেটে অনেক গৌরবগাথা অধ্যায়ই রচিত হয়েছে তার ব্যাটে। তাকে ডাকা হয় ড্যাশিং ওপেনার নামে। তিনি তামিম ইকবাল। আজ এ তারকার জন্মদিন। ৩৫ বছরে পা দিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা ওপেনার। বুধবার (২০ মার্চ) ৩৫ বছর বয়স পূর্ণ হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক ওয়ানডে অধিনায়কের।

১৯৮৯ সালের এই দিনে চট্টগ্রামের বিখ্যাত খান পরিবারে জন্ম নেন তামিম ইকবাল। তার বাবার নাম ইকবাল খান, মা নুসরাত খান ইকবাল। ক্রিকেট অনুরাগী ইকবাল খানের কনিষ্ঠ পুত্র তামিম ২০০৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রথমবার বাংলাদেশের জার্সিতে খেলেন। দীর্ঘ ১৭ বছরে বাংলাদেশকে বাংলাদেশ ক্রিকেটকে অনেক আনন্দের উপলক্ষ এনে দিয়েছেন তিনি। নামের সঙ্গে যুক্ত করেছেন দেশের সেরা ওপেনারের তকমা।

ক্রিকেট তামিমের পরিবারেই ছিল। চাচা আকরাম খান দেশের হয়ে খেলেছেন ওয়ানডে এবং টেস্ট ক্রিকেট। দেশকে নেতৃত্বও দিয়েছেন সাবেক এই অলরাউন্ডার। এখন আছেন বিসিবির গুরুত্বপূর্ণ পদে। তামিমের বড় ভাই নাফিস ইকবালও খেলেছেন জাতীয় দলে। ক্যারিয়ারের শুরুতে বেশ ঝলক দেখালেও বেশিদিন টিকতে পারেননি। বর্তমানে জাতীয় দলের টিম ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন নাফিস।

তবে ক্রিকেটে খ্যাতির দিক থেকে চিন্তা করলে পরিবারের সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন তামিম। দেশের হয়ে এখন পর্যন্ত ২৪৩ ওয়ানডে খেলে ৮৩৫৭ রান করেছেন তামিম। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে এই ফরম্যাটের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি। টেস্টে ৫১৩৪ রান নিয়ে ফরম্যাটের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক এই ওপেনার। টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিয়ে ফেললেও রেকর্ডের ফোয়ারা ছুটিয়ে গেছেন আগেই। ক্রিকেটের ক্ষুদ্রতম ফরম্যাটে ১ হাজার ৬১৩ রান করা তামিম এই ফরম্যাটে দেশের প্রথম ব্যাটার হিসেবে ১ হাজার রান করেছেন।

তামিম ইকবাল প্রথম চমক দেখান ২০০৭ বিশ্বকাপে। সেবার প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ৫৩ বলে ৫১ করেন তিনি যা পরিস্থিতির বিচারে দেশের ক্রিকেটের অন্যতম সেরা ইনিংস হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছে।

২০০৯ মৌসুমের জুলাই-আগস্ট মাসে বাংলাদেশের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে তামিম ইকবাল তার প্রথম টেস্ট শতক করেন। ওয়ানডেতে প্রথম শতক আসে আয়ারল্যান্ড দলের বিপক্ষে। ২০১১ সালে তামিম উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমেনাক ম্যাগাজিন কর্তৃক বছরের সেরা পাঁচ ক্রিকেটারের একজন হিসেবে নির্বাচিত হন। বাংলাদেশের প্রথম এবং একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে লর্ডসের অনার্স বোর্ডে নাম লেখানো ক্রিকেটারও তিনিই।

২০২৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসের পর জাতীয় দলে আর খেলা হয়নি তামিমের। এর কয়েক মাস আগে ওয়ানডের নেতৃত্বও ছাড়েন তিনি। তবে বিপিএল দিয়ে আবারও মাঠে ফিরেন তিনি। নেতৃত্ব দিয়ে ফরচুন বরিশালকে জিতিয়েছেন ট্রফি। তবে তামিমের জাতীয় দলে ফেরার বিষয়টি এখনও ধোঁয়াশায় রয়ে গেছে।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..