1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

গাজীপুর মহাসড়কে বাড়ছে যাত্রী ও গাড়ির চাপ

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৯ জুলাই, ২০২১
  • ২২২ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্ট :: গাজীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ ও ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের ব্যস্ততম স্থানগুলোতে ঘরমুখী মানুষের ভিড় বাড়ছে। সেই সঙ্গে সড়কে বাড়ছে গণপরিবহনের সংখ্যাও। বিশেষ করে গাজীপুর শিল্প এলাকা হওয়ায় রোববার বেশকিছু পোশাক কারখানা ছুটি হয়ে গেছে।

আজ দুপুরের দিকে প্রায় সব কারখানাই ছুটি হবে। সে জন্য অনেকে প্রস্তুতি নিয়ে বের হয়েছেন যে কারখানা ছুটির পরপরই তারা পরিবারের সঙ্গে ঈদের ছুটি কাটাতে গ্রামে চলে যাবেন। ব্যস্ততম এসব স্থানে পরিবহন সংশ্লিষ্টরা এবং যাত্রীদের কেউই স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না।

সোমবার সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈরে চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় যাত্রীদের চাপ ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে গণপরিবহনের সংখ্যা কম ছিল। ওই এলাকার বেশকিছু কারখানা রবিবার ছুটি হওয়ার কারণে কারখানার শ্রমিক-কর্মচারীরা পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ছুটে চলছেন গ্রামের উদ্দেশে। চন্দ্রা এলাকায় যাত্রী ও যানবাহনের আধিক্য ধীরে ধীরে বাড়ছে। ওই এলাকায় পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা যানবাহনের শৃঙ্খলা আনয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। কালিয়াকৈরের সফিপুর, মৌচাক এলাকাতেও যানবাহন এবং যাত্রীদের চাপ রয়েছে।

এদিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের টঙ্গী থেকে গাজীপুর চৌরাস্তা পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার অংশে বিভিন্ন স্থানে থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। বিশেষ করে টঙ্গী ব্রিজ থেকে এরশাদনগর পর্যন্ত পাঁচ কিলোমিটার রাস্তায় উভয়পাশে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এ সড়কে চলাচলকারীরা জানিয়েছেন বিআরটি প্রকল্পের কাজের জন্য রাস্তা খানাখন্দ এবং বিভিন্ন স্থানে ফোর লেনের সড়ক দুই লেন হয়ে যাওয়ায় যানবাহন ধীর গতিতে চলাচল করছে। এতে রাস্তার দুই পাশেই যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

অপরদিকে গাজীপুর মহানগরীর চান্দনা চৌরাস্তা ও ভোগড়া বাইপাস মোড়ে যাত্রীবাহী এবং পণ্যবাহী যানবাহনের প্রচার চাপ বেড়েছে। রাস্তার দুই পাশে ঈদের ঘরমুখীা মানুষের ভিড় বাড়ছে। দুপুরের পর কারখানা ছুটি হলে যারা গন্তব্যে যাবেন তাদের জন্য চান্দনা চৌরাস্তা ও ভোগড়া বাইপাস এলাকায় যাত্রীবাহী বাসগুলো রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে আছে। অনেকে অগ্রিম টিকিট কেটে রেখেছেন আবার অনেকে বাস স্টপেজে এসে টিকিট কাটবেন।

কোনাবাড়ী হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর গোলাম ফারুক বলেন, সকাল ১০টা পর্যন্ত চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় কোনো যানজট নেই। তবে যাত্রীদের চাপ রয়েছে। দুপুরের পর যানবাহন ও মানুষের চাপ বাড়বে।

এ ছাড়া গাজীপুর মহানগরীর এরশাদনগর, গাজীপুরা, কুনিয়া বড়বাড়ি, ছয়দানা মালেকের বাড়ি, বোর্ডবাজার, বাসন সড়ক ও চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় যানবাহনের প্রচুর চাপ রয়েছে। ওই সব পয়েন্ট থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। একই সঙ্গে এসব পয়েন্টে ঘরমুখী মানুষের ভিড় বাড়তে শুরু করেছে। তবে যাত্রীদের স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনো প্রবণতা নেই।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (ট্রাফিক বিভাগ) মো. মেহেদী হাসান বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ঘরমুখী মানুষের ভিড় আন্তে আস্তে বাড়ছে। দুপুরের পর কারখানা ছুটি হলে চাপ আরও বাড়বে। সড়কে যানবাহনের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে এবং যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশ কাজ করছে।

 

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..