1. newsmkp@gmail.com : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. info@fxdailyinfo.com : admi2017 :
  3. admin@mkantho.com : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১০:১৮ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
মৌলভীবাজারের ৫টি রেলওয়ে স্টেশন বন্ধ থাকায় এখন ভুতুরে বাড়ি: যাত্রী দুর্ভোগ চরমে: চুরি ও নষ্ট হচ্ছে রেলওয়ের মুল্যবান সম্পদ,নতুন বছরে দৃঢ় হোক সম্প্রীতির বন্ধন, দূর হোক সংকট: প্রধানমন্ত্রী. আজ রোববার উদযাপন হবে বই উৎসব. দুর্গম এলাকায় বিকল্প ব্যবস্থায় নতুন বই পাঠানো হবে: শিক্ষামন্ত্রী, নতুন বছরে নতুন শিক্ষাক্রম চালু হচ্ছে : শিক্ষামন্ত্রী, নতুন আশা নিয়ে মধ্যরাতে বরণ করা হবে ২০২৩ সাল, সিডনিতে আতশবাজির মধ্য দিয়ে ‘নিউ ইয়ার’ বরণ, ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনে পুলিশের কড়াকড়ি,আবারও প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা, সম্পাদক হলেন শ্যামল ,নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে কুয়াকাটায় পর্যটকের ঢল

ব্যক্তিগত প্রতিশোধের ‘অস্ত্র’ যখন সাইবার অপরাধ

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৪৫ বার পঠিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: ব্যক্তিগত কারণে প্রতিশোধ তোলার ‘অস্ত্র’ সাইবার অপরাধ। গত বছর কলকাতায় যত সাইবার অপরাধ হয়েছে, তার মধ্যে একটি বড় অংশের অপরাধীই ব্যক্তিগত শোধ তুলতে বেছে নিয়েছে সাইবার দুনিয়াকে।

ভারতের ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর বা এনসিআরবি’র রিপোর্টেই প্রকাশ পেয়েছে এই তথ্য।

ভারতের কলকাতা শহরে বাড়ছে সাইবার অপরাধের সংখ্যা। এই ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন কলকাতার পুলিশ কমিশনারও। অপরাধের কারণ খতিয়ে দেখেছেন লালবাজারের সাইবার থানার আধিকারিকরা। এনসিআরবি’র তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালে কলকাতায় ৩২টি সাইবার মামলা হয়েছিল। সেখানে ২০১৯ সালে এই সংখ্যা দাঁড়ায় ১৬০টিতে। ২০২০ সালের পরিসংখ্যানে কলকাতায় দায়ের হয়েছে ১৭২টি সাইবার অপরাধ সংক্রান্ত মামলা। যদিও বেঙ্গালুরুতে এই সংখ্যা আরও অনেক বেশি – ৮৮৯২। একইভাবে অন্যান্য শহরেও অপরাধের সংখ্যা কয়েক হাজার। যেমন, হায়দরাবাদে ২৫৫৩, মুম্বাইয়ে ২৪৩৩, লখনউয়ে ১৪৬৫টি। এছাড়াও চেন্নাই, কানপুর, নাগপুর, পাটনা, আহমেদাবাদ, পুনে, সুরাটের মতো দেশের অন্যান্য শহরে কলকাতার থেকে সাইবার অপরাধের সংখ্যা অনেকটাই বেশি।

কলকাতার ক্ষেত্রে এনসিআরবি’র রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০২০ সালে ১৭২টি মামলার মধ্যে ৫৪টি ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত শোধ তুলতেই করা হয়েছে সাইবার অপরাধ। পুলিশের সূত্র জানিয়েছে, বহু ক্ষেত্রেই দেখা যায়, এই অপরাধের শিকার হন মহিলারা। প্রেমে ধাক্কা খেয়ে প্রেমিকার ভুয়ো প্রোফাইল খুলে তার অশ্লীল ছবি অথবা ছবি মর্ফিং করে আপলোড করে দেওয়া হয়েছে। আবার কোনও অফিসের সাবেক কর্মচারীও আক্রোশে ভুয়া প্রোফাইল তৈরি করে এই অপরাধ ঘটিয়েছে, এমনও দেখা গেছে।

বেঙ্গালুরুতে ৮৩টি অপরাধের নেপথ্যে রয়েছে এই একই কারণ। আবার কলকাতায় প্রচণ্ড রাগ থেকে দু’জন সাইবার অপরাধ ঘটিয়েছে। নাগপুরের ক্ষেত্রে এই সংখ্যা ৭০। যদিও সারা দেশে জালিয়াতির কারণেই যে সবথেকে বেশি সংখ্যক সাইবার অপরাধ ঘটেছে, তা জানা গেছে। বিভিন্নভাবে ফাঁদ পেতে সাইবার জালিয়াতরা তুলে নিচ্ছে টাকা। গত বছর জালিয়াতি করতেই কলকাতায় ৫৬টি সাইবার অপরাধের ঘটনা ঘটেছে। যদিও বেঙ্গালুরুতে জালিয়াতির কারণে ৮৩১৮, হায়দরাবাদে ২৫২১, মুম্বইয়ে ১৭২৭, লখনৌয়ে ৬৫৩, পাটনায় ২৪৮, আমহেদাবাদে ৩০৯টি সাইবার অপরাধের ঘটনা ঘটেছে।

কলকাতায় চাঁদাবাজির জন্য ৯টি সাইবার অপরাধ ঘটেছে। সেখানে লখনউয়ে এই কারণে অপরাধের সংখ্যা ৬৫৬। মজা করতে গিয়েও গত বছর কলকাতায় দু’টি সাইবার অপরাধের ঘটনা ঘটেছে। ১৯টি বড় শহরে বহু সাইবার অপরাধের পিছনে রয়েছে যৌন হেনস্তাও। গত বছর কলকাতায় ১৫টি সাইবার অপরাধের পিছনে ছিল যৌন হেনস্তা। দিল্লি, মুম্বাই, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু, কানপুর, নাগপুরের মতো শহরগুলিতে এই সংখ্যা কলকাতার তুলনায় অনেকটাই বেশি।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..