1. newsmkp@gmail.com : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. info@fxdailyinfo.com : admi2017 :
  3. admin@mkantho.com : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৩৮ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
র্অথপাচাররে প্রতবিদেন দতিে বলিম্বে আদালতরে উষ্মা প্রকাশ, ট-িটোয়ন্টেি বশ্বিকাপে র্সবোচ্চ উইকটেরে মালকি সাকবি,পঁেয়াজরে জ্বালায় অস্থরি বাণজ্যিমন্ত্রী! ,‘বঙ্গবন্ধু শখে মুজবি কুইজ’ লটারতিে বজিয়ী ১০০ জন, বাংলাদশেে সব র্ধমরে মানুষরে সহাবস্থান চায় যুক্তরাজ্য: হাইকমশিনার, তৃতীয় ধাপে ঢাকা ও ময়মনসংিহ বভিাগে নৌকা পলেনে যারা, ডঙ্গেু নয়িে হাসপাতালে ১৭৯ জন, মৃত্যু একজনরে, সরকার সাম্প্রদায়কিতা সৃষ্টি করে বএিনপকিে দায়ী করছ:ে ফখরুল, ওবায়দুল কাদরেরে স্বাক্ষর জাল: উপজলো ভাইস-চয়োরম্যান কারাগারে সাম্প্রদায়কি হামলায় জড়তিরা যে দলরেই হোক বচিার হব:ে আইনমন্ত্রী, টকিা নয়িে বাংলাদশেে এলে কোয়ারন্টোইন লাগবে না

স্থানীয় এমপি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানে সম্মিলিত গোপন মিটিং করে ভোট সেন্টার দখলের অভিযোগ -স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রেম সাগর হাজরা

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৭ অক্টোবর, ২০২১
  • ৫২ বার পঠিত

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি :: স্থানীয় এমপি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সম্মিলিত ভাবে এবং গোপন মিটিং করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে ১ টা থেকে বিকাল ৪ পর্যন্ত সেন্টার দখলের। মির্জাপুর, কালাপুর, ভুনবীর, শ্রীমঙ্গল ইউনিয়ন, পৌরসভা সব জায়গায় এখনই অবস্থা। ভোট সুষ্ঠ ও সুন্দর হয়নাই জনগণের সম্মতিকে তিনি ভোট ফালাফল তিনি বর্জন করছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে ভোট শেষে ভাড়াউড়া চা বাগান এলাকায় স্থানীয় সংবাদ কর্মী ও সমর্থকদের উদ্যেশ্য এমন কথা বলছিলেন জাতীয় শ্রমিক লীগ শ্রীমঙ্গল উপজেলার নেতা শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে আনারশ প্রর্তীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রেম সাগর হাজরা।
তিনি আরো বলেন, তারা যখন ভোট কেন্দ্র দখল করে ভোট দিচ্ছিল, তিনি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গেলে তাকে ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়। এসময় তার ভাই ও এক সাংবাদিক উপর হামলা করে রক্তান্ত করেছে। এখনো তার ভাই হাসপাতালে ভর্তি আছে। তিনি আরো বলের, আমরা তো সব সময় নৌকা কে ভোট দিয়ে আসছি। চা বাগান অধ্যষিত এলাকায় নৌকা প্রতিক নিয়ে এখানে এমপি হয়। আজ সেই এমপি চা বাগানের একটা সন্তানের উপর লেগেছে। এই এমপি ও জেলা পরিষদের যারা আছেন কুচক্র। তারা সারা জীবনপেয়ে আসছে। কখনো দেয়নাই। তারা গত ৫০ বছর ধরে দিয়ে আসছেন এই আওয়ামী লীগকে। কিন্ত আজ সেই আওয়ামী লীগ ও জেরা পরিষদের চেয়ারম্যান তাকে ষড়যন্ত করে হারিয়েছে।
আমরা আওয়ামী লীগ পরিবার। চা বাগান আওয়ামী লীগ পরিবার। সব সময় আমরা আওয়ামী লীগ কে ভোট দিয়ে আসছি। কিন্ত এটা স্থানীয় নির্বাচন। তাই এ নির্বাচনে এমন টা করা টিক হয়নি। তাই চা বাগানের মানুষের সম্পন্ন আস্থা নষ্ট হয়েছে। এই আস্থা আর কখনো ফিরে আসবে না। আগামীতে আর য়ে ভালো ভোট হবে, তারা কিভাবে বিশেষ করবে। তাই তিনি উপজেলার সকলকে এ ভোট বর্জন করার আহবান জানান।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..