1. newsmkp@gmail.com : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. info@fxdailyinfo.com : admi2017 :
  3. admin@mkantho.com : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
ব্রেকিং নিউজ :
জাতীয় : কোস্টগার্ডের প্রয়োজনে যা দরকার তা করবে সরকার : প্রধানমন্ত্রী

চুনারুঘাটে স্বামী স্ত্রীর আত্বহত্যা নিয়ে নানা গুঞ্জন, হত্যা না আত্বহত্যা!

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২১
  • ২০৮ বার পঠিত

চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে দক্ষিন নরপতি গ্রামে স্বামী-স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার নিয়ে  এলাকায় আলোচনা সমালোচনার ঝড় দিন দিন বেড়েই চলছে । আত্মহত্যা না হত্যা এ নিয়ে চলছে নানা গুঞ্জন । চুনারুঘাটের একদল সাংবাদিক টিমের মাধ্যমে গতকাল সরেজমিনে ঘটনাস্থল ও আশপাশের এলাকাবাসীর কাছ থেকে অনেক গোপনীয় তথ্য বের হয়ে আসছে । গত ৫ নভেম্বর উপজেলার নরপতি গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে আব্দুর রউফ (৩০) ও তার স্ত্রী আলেয়া আক্তার (২৮) এর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ । একই ওড়না দিয়ে নিহত আঃ রউফ ও স্ত্রী  আলেয়ার ঝুলন্তের প্রাথমিক আলামত দেখে স্হানীয় এলাকাবাসী ও  পরিবারের কাছে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে । আত্বহত্যার বিষয়টি মেনে নিতে পারছেনই না এলাকাবাসী ও সুধী মহল । নিহত রউফ আলেয়ার রায়হান (৯) ও ফরহাদ (৫) নামে  ফুটফুটে দুটি পুত্র সন্তান রয়েছে । মা-বাবা হারানো দুটি পুত্র সন্তানের ভবিষ্যৎ এখন অনিশ্চিত । কে দাড়াবে তাদের পাশে ? ঘটনার দিন তারা একই ঘরের পাশের রুমেই প্রতিদিনের ন্যায় ঘুমিয়ে পড়ে । পরদিন ভোর সকালে তারা ঘুম থেকে উঠে তাদের মা-বাবাকে ঝুলন্ত অবস্থা দেখে বড় ছেলে রায়হান বাড়ীর পাশে রাস্তায় গিয়ে লোকজন ও পরিবারকে জানালে  লোকজন ও পরিবার চুনারুঘাট থানা পুলিশকে খবর দেয় ।  পরে পুলিশ এসে স্বামী আঃ রউফকে ঝুলন্ত ও স্ত্রী আলেয়াকে পালংয়ের উপর গলায় একই ওড়না পেছানো বসা অবস্থায়  মৃত দেখতে পায় । স্বামী-স্ত্রীর লাশ সহকারী পুলিশ সুপার মাধবপুর (সার্কেল) মহসিন আল মুরাদের নেতৃত্বে একদল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পর্রিদশন করে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ মর্গে প্রেরন করেন । এদিকে আলেয়াকে বসা অবস্থায় ওড়না পেছানো মৃত দেখে সন্দেহ যেন বাড়ছেই । বসা অবস্থায় আলেয়ার ওড়না পেছানো আত্বহত্যার কথা কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না এলাকাবাসীও সুধীমহল । স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কোন সমস্যা ছিল না । এ দিকে নিহত রউফের ছোট ভাই রফিকুল ইসলাম চঞ্চল কে নিয়ে চলছে নানান সমালোচনা । অপর একটি সুত্র জানায় নিহত আঃ রউফের সাথে বাড়ীর জমি জমা নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে তার আপন ছোট ভাই রফিকুল ইসলাম চঞ্চল মিয়ার বিরোধ চলছিল । এ নিয়ে স্হানীয় মুরুব্বিরা কয়েকবার শালীস বিচার করলে ও কোন সুরাহা হয়নি । এ জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়েই এ রকম দুর্ঘনা ঘটতে পারে বলে একটি মহলের ধারনা । উল্লেখ্য রফিকুল ইসলাম চঞ্চল ইতিপূর্বে  গাজাঁ, নারী কেলেঙ্কারি সহ বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত থাকার অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে বলে স্হানীয় সুত্রে জানা যায় । নানান অপরাধে সে ২বার তার অপকর্মের জন্য জেল ও কেটেছে । তার অসামাজিক ব্যবসাসহ বিভিন্ন ধরনের অপকর্মের দায় ভার সইতে না পেরে এলাকাবাসী মাইকিং করে চঞ্চলকে নরপতি (পুকুর ভাঙ্গা) থেকে বিতারিতও করেছেন । জমি সংক্রান্ত, পারিবারিক কিংবা যে কোন ধরনের মত-বিরোধ নিয়ে তার ভাই ও  ভাবীকে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখতে পারে বলে অনেকেরই ধারনা । তবে চঞ্চলের বিরুদ্ধে ভয়ে এলাকার কেউই মুখ খুলতে রাজি নন । চঞ্চল জানায়, গাজা ও নারীব্যবসা সহ আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ রয়েছে তা সত্য নয় । এলাকাবাসী আমাকে ষড়যন্ত্রভাবে বিতারিত করেছিল । চুনারুঘাট থানা অফিসার ইনর্চাজ মোঃ আলী আশরাফ বলেন, এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে । মেডিকেল (পিএম) রিপোর্ট না আসা পযর্ন্ত কিছু বলা যাবে না । আমরা বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখছি । এলাকাবাসীর ধারনা পুলিশের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমেই থলের বিড়াল বেরিয়ে আসবে ।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..