1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

সিলেটে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সদস্য শাহীন আক্তার জনগণের ভ্যাটে দেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধ হচ্ছে

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ২৫৫ বার পঠিত

সিলেট অফিস: জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সদস্য (কর প্রশাসন ও মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা) শাহীন আক্তার বলেছেন, জাতীয় অর্থনীতিতে বিশাল যোগান দিচ্ছে ভ্যাট ও কর। জনগণের ভ্যাটে দেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধ হচ্ছে। তারা ভ্যাট দিচ্ছেন বলেই দেশে একের পর এক বড় বড় প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে।
‘অনলাইনে ভ্যাট দিন, দেশ গড়ায় অংশ নিন’ -এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সিলেটে জাতীয় ভ্যাট দিবস ও জাতীয় ভ্যাট সপ্তাহ-২০২১ উদযাপন উপলক্ষে শুক্রবার বিকেলে নগরীর উপশহরস্থ একটি অভিজাত হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
শাহীন আক্তার বলেন, এক সময় আমাদেশ দেশ বৈদেশিক ঋণের উপর নির্ভরশীল ছিলো। কিন্তু এখন আর সে দিন নেই, জনগণের অর্থেই একের পর এক উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। বাংলাদেশের অর্থনীতি দ্রæত এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদের দেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের ক্ষেত্রে মডেল। বিশ্বের বিভিন্ন দেশকে এখন আমরা ঋণ দিচ্ছি। আর তা সম্ভব হয়েছে দেশের জনগণের স্বতঃস্ফুর্ত ভ্যাট-ট্যাক্স প্রদান এবং প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ নেতৃত্বের ফলে। শাহীন আক্তার বলেন, কিভাবে জনগণ সহজ ও ঝামেলামুক্তভাবে ভ্যাট-ট্যাক্স দিতে পারে সে বিষয় নিয়ে কাজ করছে রাজস্ব বোর্ড। আর এরই ফল হিসেবে জনগণ এখন ঘরে বসে ভ্যাট-ট্যাক্স দিতে পারছেন। তিনি বলেন, ভ্যাট ও কর প্রদানে জনগণকে আরো উৎসাহ যোগানোর পাশাপাশি এ বিষয়ে সচতনতা বাড়াতেও কাজ করছেন রাজস্ব বিভাগে কর্মরতরা।
কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, সিলেট’র কমিশনার মোহাম্মদ আহসানুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট কর অঞ্চল কমিশনার মো. সাইফুল হক, সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি আবু তাহের মো. শোয়েব, সিলেট উইমেন্স চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি স্বর্ণলতা রায়।
মাওলানা মনজুর আহমদের পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মধ্যদিয়ে সূচিত অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, সিলেট’র অতিরিক্ত কমিশনার রাশেদুল আলম। পরে অতিথিবৃন্দকে ফুল দিয়ে বরণ করেন কর কর্মকর্তাবৃন্দ।
সবশেষে সিলেট বিভাগের সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারী ৮টি প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলের মেসার্স সাদেক স্টোর, কুলাউড়ার সাউথ সিলেট এন্টারপ্রাইজ, সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জের এলপি গ্যাস লিমিটেড, বিয়ানীবাজারের আলিসা মর্টস, সিলেট নগরীর আনন্দ নিকেতন লিমিটেড, হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুরের চারু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, হবিগঞ্জ জেলা সদরের মেসার্স শরীফ ইলেকট্রনিক্স ও সুনামগঞ্জ জেলা সদরের পানসী রেস্টুরেন্ট।
সভাপতির বক্তব্যে কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, সিলেট’র কমিশনার মোহাম্মদ আহসানুল হক বলেন, ১৯৯১ সালের ১ জুলাই থেকে বাংলাদেশে ভ্যাট ব্যবস্থা চালু হয়। সরকার এ দিনটির গুরুত্ব বিবেচনা করে ২০১৩ সাল থেকে প্রতি বছর ১০ ডিসেম্বর ‘ভ্যাট দিবস’ এবং ১০-১৫ ডিসেম্বর ‘ভ্যাট সপ্তাহ’ উদযাপন করছে। তিনি বলেন, করোনাকালেও এবার অন্যান্য বছরের মতো কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, সিলেট’র উচ্চতর প্রবৃদ্ধির ভ্যাট আদায় হয়েছে। আর তা সম্ভব হয়েছে মূলত ব্যবসায়ী ও ভ্যাট কর্মকর্তাদের সদিচ্ছার ফলে।

 

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..