1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১০:৪৫ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

ডেসমন্ড টুটুর মৃত্যুতে ওবামার শ্রদ্ধা

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৬২৯ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্ট : ৯০ বছর বয়সী বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনের নেতা, দক্ষিণ আফ্রিকার নোবেলজয়ী আর্চবিশপ ডেসমন্ড টুটুর চিরবিদায়ে তাকে শ্রদ্ধা জানাতে সামিল হয়েছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

টুটুকে একজন মেনটর, বন্ধু এবং নৈতিকতার দিকনির্দেশক হিসেবে বর্ণনা করেছেন ওবামা।

ওবামা বলেন, টুটু তার নিজ দেশের মানুষের মুক্তি এবং ন্যায়বিচারের জন্য সংগ্রামে ব্রতী হয়েছিলেন। কিন্তু একইভাবে তিনি বিশ্বের অন্য সব জায়গায়ও অন্যায়-অবিচার নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন।

‘প্রতিকূলতার মধ্যেও তিনি মানবতা অণ্বেষণের পথ থেকে কখনও বিচ্যুত হননি এবং রসবোধও হারাননি। মিশেল এবং আমি এই প্রিয় মানুষটিকে মিস করব।’

শান্তিতে নোবেলজয়ী ডেসমন্ড টুটু রোববার মারা যান। দীর্ঘদিন প্রস্টেট ক্যানসার এবং সংক্রমণে ভুগে, কেপটাউনে তার মৃত্যু হয়।

বিংশ শতাব্দীর শেষ দিকে কেপটাউনে আর্চ বিশপ হিসেবে দায়িত্বপালন করা টুটু দক্ষিণ আফ্রিকার নিগৃহীত সমাজে জাতিগত বিদ্বেষ কমানোর ক্ষেত্রে অনন্য ভূমিকা পালন করেন।

১৯৪৮ থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকায় সংখ্যালঘু শ্বেতাঙ্গরা গায়ের রঙের ভিত্তিতে মানুষকে আলাদা করে যে বৈষম্যের শাসন জারি রেখেছিল, তার বিরুদ্ধে আন্দোলনে তিনি ছিলেন অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শক্তি।

নতুন প্রজন্মের হাতে ‘স্বাধীন দক্ষিণ আফ্রিকা’ তুলে দিতেও টুটু সাহায্য করেছিলেন। তিনি প্রতিবাদ ছড়িয়ে দিতে পেরেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার সীমানা ছাড়িয়ে সারা বিশ্বেও। এই নেতা সব আঘাত হাস্যরসের সঙ্গে এড়িয়ে যেতে ছিলেন পারঙ্গম।

টুটুর অবদানের স্মরণে তাকে এরই মধ্যে শ্রদ্ধা জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের আর্চবিশপ, প্রধানমন্ত্রীসহ অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিরা। ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ বলেছেন, টুটুর মৃত্যুশোক কেবল দক্ষিণ আফ্রিকা নয়, গ্রেট ব্রিটেন, নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড এমনকি কমন ওয়েলথজুড়েও অনুভূত হবে।

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা এবং নেলসন ম্যান্ডেলা ফাউন্ডেশনও টুটুর মৃত্যুতে তাকে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে।

‘টুটু একজন অনুসরণীয় আধ্যাত্মিক নেতা, বর্ণবাদবিরোধী কর্মী এবং বিশ্বব্যাপী মানবাধিকারের প্রচারক’ বলে উল্ল্যেখ করেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট রামাফোসা।

এদিকে নেলসন ম্যান্ডেলা ফাউন্ডেশন টুটুকে একজন অসাধারণ মানুষ, চিন্তাবিদ এবং নেতা বলে অভিহিত করেছে। ভ্যাটিকানও এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস টুটুর মত্যুতে তার পরিবার ও প্রিয়জনদের হৃদয় নিংড়ানো সমবেদনা জানিয়েছেন।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..