1. newsmkp@gmail.com : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. info@fxdailyinfo.com : admi2017 :
  • E-paper
  • English Version
  • মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০৮:২৪ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
করোনা আপডেট : করোনায় আরও ২২৮ মৃত্যু, শনাক্ত ১১,২৯১  

কমলগঞ্জের লাউয়াছড়ায় আগুন লাগলো কিভাবে?: দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২১
  • ৫৮ বার পঠিত

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি: দেশের অন্যতম সংরক্ষিত বন মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া। বিরল প্রজাতির বণ্যপ্রাণীর আশ্রয়স্থল জাতীয় এই উদ্যানে শনিবার দুপুরে হঠাৎ করে আগুন লেগে যায়। প্রায় ৪ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে বিকেল ৪টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হলেও বনের ভেতরে আগুন লাগলো কিভাবে এ নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে জাতীয় এই উদ্যানে আগুন লেগে যায়। আগুনের উৎস ও ক্ষয়ক্ষতি নিরূপনে দুই সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বনবিভাগ। স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, লাউয়াছড়া বনের ভেতরে স্টুডেন্ট ডরমেটরি অংশে কাজ করছিলেন বন বিভাগের কিছু কর্মী। দুপুর ১২ টার দিকে ওই এলাকায় হঠাৎ আগুন লাগে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক সূত্র জানান, শনিবার সকাল থেকেই বনবিভাগ কর্মীরা বনের ভেতরের ঝোপঝাড় পরিস্কারের কাজ করছিলেন৷ পরিস্কার করতে গিয়ে শ্রমিকরা গাছের শুকনো ডালপালা ও খড়কুটোতে আগুন ধরিয়ে দেন। সেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে বনের ভেতরে। এনিয়ে ক্ষোভ প্রকা্শ করে লাউয়াছড়া বন ও জীববৈচিত্র্য রক্ষা আন্দোলনের আহ্বায়ক প্রভাষক জলি পাল বলেন, আমি শুনেছি বন বিভাগের কর্মীরা বন পরিষ্কার করতে গিয়েছিলো। তাদের মাধ্যমেই আগুনের সূত্রপাত হয় বলে অণেকে অভিযোগ করেছেন। কিন্তু বন পরিষ্কার করতে হবে কেনো। বন তো বনের মত থাকবে ।

তবে বন বিভাগের একাধিক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, বনায়নের লক্ষ্যে লাউয়াছড়ার বনের ভেতরের জঙ্গল পরিস্কার করছিলেন কর্মীরা। তবে আগুনের সূত্রপাত কিভাবে এ নিয়ে তারা কোনো মন্তব্য করতে রাজী হননি। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় দুই সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বন বিভাগ। এই কমিটিকে দুই দিনের ভেতরে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বনবিভাগের বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা মির্জা মেহেদি সরোয়ারের নেতৃত্বে কমিটির অন্য সদস্য হলেন- বন মামলা পরিচালক জুলহাস উদ্দিন। ফায়ার সার্ভিসের কমলগঞ্জ স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন ম্যানেজার নুরুল ইসলাম জানিয়েছেন, বিকেলের দিকে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তবে আগুনের উৎস সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

সিলেট বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ) রেজাউল করিম চৌধুরী জানান, আগুন কিভাবে লাগলো এবং কি পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা নিরূপণে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির প্রতিবেদন পেলে আগুণের সূত্রপাত সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে।১২৫০ হেক্টর জমি নিয়ে লাউয়াছড়া সংরক্ষিত বনাঞ্চল। ১৯৯৬ সালে এটিকে জাতীয় উদ্যান হিসেবে ঘোষণা করা হয়। উদ্ভিদ আর প্রাণীবৈচিত্রের আঁধার এই বন বিভিন্ন বিরল ও বিপন্ন প্রজাতির প্রাণীর আবাসস্থল হিসেবে পরিচিত। বন বিভাগের হিসেব মতে, ২০ প্রজাতির স্তন্যপায়ী, ৫৯ প্রজাতির সরীসৃপ (৩৯ প্রজাতির সাপ, ১৮ প্রজাতির লিজার্ড, ২ প্রজাতির কচ্ছপ), ২২ প্রজাতির উভচর, ২৪৬ প্রজাতির পাখি ও অসংখ্য কীট-পতঙ্গ রয়েছে। এই বনে বিরল প্রজাতির উল্লুক, মুখপোড়া হনুমান, চশমাপড়া হনুমানও দেখতে পাওয়া যায়।

কমলগঞ্জের লাউয়াছড়া সংরক্ষিত বনে অগ্নিকান্ডের ঘটনা তদন্তে দুই সদস্যের কমিটি গঠন করেছে বনবিভাগ। বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের সিলেট বিভাগীয় বন কর্মকর্তা রেজাউল করিম চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।ওই কমিটিতে রয়েছেন বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য কর্মকর্তা মীর্জা মেহেদী সরওয়ার ও বন মামলা পরিচালক জুলহাস উদ্দিন। তাদের দুই দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..