1. newsmkp@gmail.com : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. info@fxdailyinfo.com : admi2017 :
  3. admin@mkantho.com : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৯:৩৪ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
* বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শনে সিলেটে প্রধানমন্ত্রী   *  বন্যা নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই, সরকার সব ব্যবস্থা নিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

ফের চালু হচ্ছে খুলনা-কলকাতা ট্রেন

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৮ মে, ২০২২
  • ১৭৫ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্ট :: দীর্ঘ দুই বছরের বেশি সময় বন্ধ থাকার পর আবারও চালু হচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত আন্তঃদেশীয় যাত্রীবাহী ট্রেন বন্ধন এক্সপ্রেস। দুই দেশের মধ্যে চলাচলকারী ট্রেনটি আগামীকাল রোববার (২৯ এপ্রিল) সকালে কলকাতা থেকে যাত্রা করে দুপুর সাড়ে ১২টায় খুলনা স্টেশনে এসে পৌঁছাবে। একঘণ্টা বিরতির পর দুপুর দেড়টায় খুলনা থেকে যাত্রা করে সন্ধ্যা ৭টা ১০মিনিটে কলকাতা পৌঁছাবে।

খুলনা রেলওয়ে স্টেশন সূত্র জানায়, ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর কলকাতা-খুলনার মধ্যে ৪৫৬ আসনের আন্তর্জাতিক বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল শুরু করে। মোট ১০টি বগির মধ্যে রয়েছে দুটি পাওয়ার কার, চারটি কেবিন বগি ও চারটি চেয়ার বগি।

কলকাতা থেকে প্রতি বৃহস্পতিবার ও রোববার এই ট্রেন ছেড়ে আসতো। আবার সেই দিনই খুলনা-যশোর-বোনাপোল হয়ে ভারতে ফিরে যেত। করোনা মহামারির কারণে ২০২০ সালের ১৫ মার্চ থেকে বন্ধন এক্সপ্রেস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমায় দেশের ভেতরে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হলেও আন্তঃদেশীয় এ ট্রেন বন্ধ ছিল।

ট্রেনের ৪৫৬ আসনের মধ্যে ৩১২টি এসি চেয়ার ও ১৪৪টি প্রথম শ্রেণির আসন রয়েছে। কলকাতা-খুলনার মধ্যে দূরত্ব ১৭২ কিলোমিটার। এর মধ্যে বাংলাদেশে ৯৫ কিলোমিটার ও ভারতে পড়েছে ৭৭ কিলোমিটার।

শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ ট্রেনে চেয়ার কোচের ভাড়া ১ হাজার টাকা ও কেবিনের সিট ভাড়া ১ হাজার ৫০০ টাকা। এছাড়াও ভ্রমণ কর রয়েছে আরও ৫০০ টাকা। বেনাপোল স্থলবন্দরে যাত্রীর পাসপোর্ট, ভিসাসহ ইমিগ্রেশনের যাবতীয় কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করা হয়। এরপর যাত্রীরা সরাসরি খুলনা ও কলকাতার মধ্যে যাতায়াত করতে পারেন।

খুলনা রেলওয়ে স্টেশনের মাস্টার মানিক চন্দ্র সরকার জানান, পূর্বের নিয়মে ট্রেন আবারও চালু হচ্ছে। দুপুর সাড়ে ১২টায় খুলনায় এসে পৌঁছাবে এবং দুপুর দেড়টার সময় ছেড়ে যাবে।

মানিক চন্দ্র সরকার বলেন, ডলারের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রতি যাত্রীকে এসি চেয়ারের জন্য ৩৫ টাকা ও এসি কেবিন সিটের জন্য ৫৫ টাকা বেশি দিতে হবে। অর্থাৎ ভ্রমণ করসহ যাত্রীদের ১ হাজার ৫৫০ টাকা ও ২ হাজার ৫৫ টাকা দিতে হবে।

 

 

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..