1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

দ্বিগুণ হচ্ছে ভিভো সার্ভিস সেন্টার:শিগগিরই দ্বিগুণ সার্ভিস সেন্টার আনছে ভিভো

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৫ মে, ২০২১
  • ২৬৬ বার পঠিত

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: বাংলাদেশ, ৪ মে; ২০২১ : বাংলাদেশে ক্রমবর্ধমান গ্রাহকের চাহিদা পূরণে নিজেদের সার্ভিস সেন্টারকে দ্বিগুণ করার উদ্যোগ নিয়েছে বহুজাতিক স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভিভো। সারাদেশে ভিভো’র বিদ্যমান ২০টি সার্ভিস সেন্টারকে বাড়িয়ে খুব শিগগিরই ৪০টি’তে রূপান্তর করবে প্রতিষ্ঠানটি।

সম্প্রতি করোনা অতিমারির প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার পর স্মার্টফোনের ব্যবহার ও চাহিদা দু’টিই বেড়েছে। বিদ্যমান সার্ভিস সেন্টারের মাধ্যমে এই চাহিদা প্রতিনিয়ত পূরণ করে যাচ্ছে ভিভো। তবে নিরবিচ্ছিন্নভাবে ক্রমবর্ধমান এই চাহিদা’র সেবা পূরণে সার্ভিস সেন্টার আরও বাড়ানোর এই ঘোষণা দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

এছাড়াও করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে সারা দেশে একটি ২৪/৭ অপারেশনাল কুরিয়্যার ম্যানেজমেন্ট সার্ভিস প্রতিষ্ঠার কাজও করছে ভিভো। এই সেবা নিশ্চিত করা গেলে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলেও পৌঁছে দেয়া যাবে ভিভো স্মার্টফোন এবং এর এক্সেসরিজ ।

এদিকে দেশব্যাপি কঠোর লকডাউনের এ সময়ে গ্রাহকরা যাতে নিরবিচ্ছিন্ন বিক্রয় পরবর্তী সেবা সঠিকভাবে পান, সেজন্যে ভিভো ব্র্যান্ড স্টোরগুলোকে ব্যবহার করা হচ্ছে গ্রাহকদের অস্থায়ী পিকআপ পয়েন্ট হিসেবে। গ্রাহকরা নিজেদের স্মার্টফোনগুলোকে এই ব্র্যান্ড স্টোরগুলোতে রেখে যাচ্ছেন এবং সার্ভিসিং শেষে আবার একই জায়গা থেকে ফেরত নিয়ে যাচ্ছেন। ফলে লকডাউনে সার্ভিস সেন্টার খোঁজার ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে না গ্রাহকদের।

বর্তমানে গ্রাহকরা এক ঘন্টার মাঝে তাদের আকাঙ্খিত সার্ভিসটি পেয়ে থাকেন ভিভো সার্ভিস সেন্টার থেকে। আর প্রতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহের বৃহস্পতিবারে ভিভো গ্রাহকদের জন্যে পালন করে ভিভো সার্ভিস ডে ।
ভিভো বাংলাদেশের কাস্টমার সার্ভিস ডিপার্টমেন্টের ডেপুটি ম্যানেজার, মোঃ শরিফুল ইসলাম ইমন বলেন, ‘বাংলাদেশে বিক্রয়-পরবর্তী সেবাকে একটি মাইলফলকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে ভিভো। তাই করোনাকালীন লকডাউনের কারণেও যাতে এই সেবায় কোনো বিঘœ না ঘটে সেজন্য আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। একইসঙ্গে আমরা আমাদের সার্ভিস সেন্টারগুলোকে দ্বিগুণ করার উদ্যোগ নিয়েছি। আশা করছি, এরপর গ্রাহকরা তাদের কাছাকাছি সার্ভিস সেন্টারে আরও দ্রæত যোগাযোগ করতে পারবেন এবং সেবা নিতে পারবেন। প্রয়োজনে এই সেবা ভিভো আরো বাড়াবে। এছাড়াও বর্তমানে ভিভো ৯ ঘন্টা অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে ক্যোয়ারী ম্যানেজমেন্ট সেবা সরবরাহ করছে যা শীঘ্রই ২৪ ঘন্টায় উন্নীত হবে।’

ভিভো’র বিক্রয় পরবর্তী সেবা ইতোমধ্যে গ্রাহকদের কাছে ব্যাপক প্রশংশিত হয়েছে। নতুন সার্ভিস উদ্যোগের প্রশংসা করে ঢাকার একজন ভিভো গ্রাহক ওয়াহিদ মুরান বলেন, ‘কিছুদিন আগে আমার ভিভো ভি১৫ প্রো’র ডিসপ্লে ভেঙ্গে যায়। ফোনটি জোড়া লাগানোর মত অবস্থায় ছিল না । এটা ঠিক হওয়ার তেমন আশাও ছিল না আমার। তারপরও আমি মেরামতের জন্য ফোনটি ভিভো’র সার্ভিস সেন্টারে পাঠাই। কিন্তু সার্ভিস টিম আমাকে নিশ্চিত করল আমার ফোনটির অবস্থা ভাল এবং এটি ঠিক করার জন্য তারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। ফ্রন্ট ডেস্কে তারা এক ঘন্টার মধ্যে ফোনটি ঠিক করে ফেলেন। ভিভো’র এ সার্ভিসে আমি খুবই মুগ্ধ হয়েছি।’

বর্তমানে দেশে ভিভো’র ২০টি সার্ভিস সেন্টার রয়েছে। এর মধ্যে ৩টি রয়েছে ঢাকায়। এ ছাড়া চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, রংপুর, খুলনা, বরিশাল, বগুড়া, নারায়নগঞ্জ, নরসিংদি, সিলেট, কুমিল্লা, গাজীপুর, রাজশাহী, সাভার, কক্সবাজার, যশোর, পটুয়াখালি এবং টাঙ্গাইলে রয়েছে বাকি সার্ভিস সেন্টারগুলো।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..