1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৫৯ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

মমতার মন্ত্রিসভায় ছয় মুসলিম, ৯ নারী

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১০ মে, ২০২১
  • ২৫৬ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্ক: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে টানা তৃতীয়বারের মতো বিজয়ী হয়ে সরকার ঘটন করেছে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেস। সোমবার মাত্র ছয় মিনিটে মন্ত্রিসভার ৪৩ জন সদস্য শপথ নিলেন। কোভিড পরিস্থিতির কারণে দ্রুত শেষ করা হয়েছে অনুষ্ঠান।এবারের মন্ত্রিসভায় মুখ্যমন্ত্রীসহ নারী মন্ত্রীর সংখ্যা নয়জন। নতুন মন্ত্রী ১৬ জন। আর সংখ্যালঘু (মুসলিম) মন্ত্রীর সংখ্যা তিনজন পূর্ণমন্ত্রীসহ ছয়জন।মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই শপথ নিয়েছিলেন। সোমবার কলকাতার রাজভবনে তার মন্ত্রিসভার ৪৩ জন মন্ত্রী শপথবাক্য পাঠ করলেন। সাধারণত একজন একজন করে মন্ত্রী রাজ্যপালের সামনে যান এবং শপথবাক্য পাঠ করেন। দেশের গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, বিশিষ্ট মানুষদের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়। জনগণও শপথ দেখতে পারেন। কিন্তু এবার কোভিডের জন্য তার কোনো কিছুই হয়নি। সাড়ে দশটা নাগাদ মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্যপাল অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছান। তার আগেই সেখানে পৌঁছে গিয়েছিলেন মন্ত্রীরা। তিন দফায় শপথবাক্য পাঠ করান রাজ্যপাল। প্রথমে পূর্ণ মন্ত্রী, তারপর স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী এবং সব শেষে প্রতিমন্ত্রীরা শপথবাক্য পাঠ করেন একসঙ্গে। আলাদা আলাদা করে শপথবাক্য পাঠ করানো হয়নি। কোভিডে আক্রান্ত রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু, পূর্বতন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রও অসুস্থ। ফলে তারা ভার্চুয়ালি বাড়ি থেকে শপথবাক্য পাঠ করেন। শারীরিক কারণে নির্বাচনে লড়েননি অমিত মিত্র। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাকে ফের মন্ত্রিত্ব দিচ্ছেন। ছয় মাসের মধ্যে উপনির্বাচনে তাকে জিতে আসতে হবে।

আজ পূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন সুব্রত মুখার্জি, পার্থ চ্যাটার্জি, অমিত মিত্র, সাধন পান্ডে, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, বঙ্কিম চন্দ্র হাজরা, মানস রঞ্জন ভুঁইয়া, সৌমেন কুমার মহাপাত্র, মলয় ঘটক, অরূপ বিশ্বাস, উজ্জ্বল বিশ্বাস, অরূপ রায়, রথীন ঘোষ, ফিরহাদ হাকিম, চন্দ্রনাথ সিনহা, শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়, ব্রাত্য বসু, পুলক রায়, শশী পাঁজা, মো. গোলাম রব্বানী, বিপ্লব মিত্র, জাভেদ আহমেদ খান, স্বপন দেবনাথ ও সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী। প্রতিমন্ত্রী হয়েছেন ১৯ জন। এর মধ্যে ১০ জন স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত। তারা হলেন বেচারাম মান্না, সুব্রত সাহা, হুমায়ুন কবীর, অখিল গিরি, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, রত্না দে নাগ, সন্ধ্যা রানী টুডু, বুলু চিক বরাইক, সুজিত বসু ও ইন্দ্রনীল সেন।বাকি নয় প্রতিমন্ত্রী হলেন দিলীপ মণ্ডল, আখতারুজ্জামান, শিউলি সাহা, শ্রীকান্ত মাহাত, ইয়াসমীন সাবিনা, বীরবাহা হাঁসদা, জ্যোৎস্না মান্ডি, অধিকারী পরেশ চন্দ্র ও মনোজ তিওয়ারি।

আগের মন্ত্রিসভার আটজন এবার বাদ পড়েছেন। তারা হলেন মন্টুরাম পাখিরা, নির্মল মাজি, গিয়াসুদ্দিন মোল্লা, আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়, অসীমা পাত্র, তাপস রায়, জাকির হোসেন ও তপন দাশগুপ্ত।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..