1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:০২ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

ইবিতে ছাত্রী নির্যাতন: ছাত্রলীগ নেত্রীসহ ৫ জন হল থেকে বহিষ্কার

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
  • ২১১ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্ক: কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রী নির্যাতনের ঘটনায় শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সানজিদা চৌধুরী অন্তরাসহ পাঁচ জনকে হল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে হল কর্তৃপক্ষের সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। হল কর্তৃপক্ষের গঠিত তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক সহযোগী অধ্যাপক ড. আহসানুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, তাদের তদন্তে ছাত্রী নির্যাতনের সত্যতা মিলেছে। যে কারণে অভিযুক্ত পাঁচ জনের আবাসিকতা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

অভিযুক্ত অন্যরা হলেন- ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং বিভাগের তাবাসসুম ইসলাম, আইন বিভাগের ইসরাত জাহান মীম, চারুকলা বিভাগের হালিমা খাতুন উর্মী ও ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের মোয়াবিয়া। ১ মার্চের মধ্যেই তাদের হল ছেড়ে চলে যেতে বলা হয়েছে। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি শাখা ছাত্রলীগ সহসভাপতি সানজিদা চৌধুরী অন্তরা ও তার প্রধান সহযোগী তাবাসসুমের বিরুদ্ধে প্রশাসন বরাবর ভয়াবহ শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের লিখিত অভিযোগ করেন নবীন শিক্ষার্থী ফুলপরী খাতুন। পর দিন বিশ্ববিদ্যালয় ও হল প্রশাসন পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। ওই দিন বিকেল ৪টায় হাইকোর্টে রিট করেন আইনজীবী গাজী মো. মহসীন।

বাঁ থেকে অভিযুক্ত অন্তরা, তাবাসসুম, ইসরাত জাহান, হালিমা খাতুন ও মোয়াবিয়া

 

১৬ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসককে তিন দিনের মধ্যে তদন্ত কমিটি গঠন করে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন।

এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের গঠিত তদন্ত কমিটিকে ১০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। এসময় অভিযুক্ত সানজিদা ও তাবাসসুমকে ক্যাম্পাসের বাইরে রাখতে বলা হয়। ১৭ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যার পর হল ছেড়ে চলে যান অভিযুক্তরা। ১৮ ফেব্রুয়ারি তদন্তের স্বার্থে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সর্বশেষ ২২ ফেব্রুয়ারি ভুক্তভোগী ও অভিযুক্তদের মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে বিশ্ববিদ্যালয় তদন্ত কমিটি।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..