1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ১০:০৯ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

ব্রুগের বিপক্ষে ড্র করলো মেসি-নেইমাররা

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৮১৬ বার পঠিত

ক্রীড়া ডেস্ক :: উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচেই জয়বঞ্চিত হয়েছে প্যারিস সেন্ত জার্মেই (পিএসজি)। ঘরের মাঠে তাদের ১-১ গোলে রুখে দিয়েছে বেলজিয়ামের ক্লাব ব্রুগে। তাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে পিএসজি’র হয়ে মেসির অভিষেকটাও রাঙানো হলো না। আর্জেন্টাইন অধিনায়ক গোল তো পাননি, উল্টো অভিষেক ম্যাচে লঘু দোষে দেখেছেন হলুদ কার্ড।

মেসি-নেইমার-এমবাপে নিয়ে খেলতে নামা পিএসজি বুর্গের মাঠে ম্যাচের ১৫ মিনিটেই এগিয়ে যায়। এ সময় কালিয়ান এমবাপে বক্সের মধ্যে বল বাড়িয়ে দেন আন্দ্রে হেরেরাকে। হেরেরা বাম পায়ের শটে বল জালে জড়ান।

তবে বেশিক্ষণ তাদের এগিয়ে থাকতে দেয়নি ব্রুগে। ম্যাচের ২৭ মিনিটেই সমতা ফেরায় তারা। এ সময় বামদিক থেকে বক্সের মধ্যে ইডুয়ার্ড সবোল কাটব্যাকে বল বাড়িয়ে দেন। দেরিতে বক্সে ঢোকা হান্স ভেনাকেন পেয়ে যান সেটা। তিনি পিএসজি গোলরক্ষক কেইলর নাভাসের আয়ত্বের বাইরে দিয়ে জালে জড়ান।

অবশ্য ভাগ্যের সিকে ছিড়েনি মেসির। ২৯ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে মেসির নেওয়া শট ক্রসবারে লেগে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এই গোলটি হলে তিনি তো অভিষেক ম্যাচেই নায়ক বনে যেতে পারতেন। কিন্তু হয়নি তেমনটি। ৩৩ মিনিটের মাথায় ফ্রি কিক থেকে গোল পেয়েই যাচ্ছিলো ব্রুগে। কিন্তু পিএসজি গোলরক্ষক নাভাস বামদিকে ঝাপিয়ে পড়ে রক্ষা করেন সেটি। অবশ্য এই ম্যাচে এমন আরো বেশ কয়েকটি সেভ করে পিএসজি রক্ষা করেন তিনি।

প্রথমার্ধে গোল শোধ করা ব্রুগে দ্বিতীয়ার্ধে আরো উজ্জীবিত ফুটবল খেলে। আক্রমণের পর আক্রমণ শানিয়ে ব্যতিব্যস্ত করে তোলে পিএসজি’র রক্ষণভাগ। তৈরি করে একাধিক সুযোগও। কিন্তু সেগুলো কাজে লাগাতে পারেনি তারা।

অন্যদিকে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ইনজুরি আক্রান্ত হয়ে মাঠ ছাড়েন এমবাপে। তিনি মাঠ ছাড়ার পর পিএসজি’র আক্রমণের ধার কমে। অনেকটা খোলসবন্দি হয়ে যায় তারা। জয় পেতে শেষ দিকে মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে পিএসজি। একের পর এক আক্রমণেও যায় তারা। সুযোগও তৈরি হয়। আবার সুযোগ নষ্টও হয়।

৮১ মিনিটে দারুণ একটি সুযোগ পেয়েছিলেন পিএসজির মাউরো ইকার্দি। এ সময় গোলপোস্টের সামনে কোনোরকমে পায়ে বল লাগাতে পারলেই গোল করতে পারতেন তিনি। কিন্তু এমন সোনালী সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। তাতে শেষ পর্যন্ত ‘এ’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেই মাঠ ছাড়তে হয় মেসি-নেইমারদের।

 

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..