1. newsmkp@gmail.com : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. info@fxdailyinfo.com : admi2017 :
  3. admin@mkantho.com : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:২৯ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
মৌলভীবাজারের ৫টি রেলওয়ে স্টেশন বন্ধ থাকায় এখন ভুতুরে বাড়ি: যাত্রী দুর্ভোগ চরমে: চুরি ও নষ্ট হচ্ছে রেলওয়ের মুল্যবান সম্পদ,নতুন বছরে দৃঢ় হোক সম্প্রীতির বন্ধন, দূর হোক সংকট: প্রধানমন্ত্রী. আজ রোববার উদযাপন হবে বই উৎসব. দুর্গম এলাকায় বিকল্প ব্যবস্থায় নতুন বই পাঠানো হবে: শিক্ষামন্ত্রী, নতুন বছরে নতুন শিক্ষাক্রম চালু হচ্ছে : শিক্ষামন্ত্রী, নতুন আশা নিয়ে মধ্যরাতে বরণ করা হবে ২০২৩ সাল, সিডনিতে আতশবাজির মধ্য দিয়ে ‘নিউ ইয়ার’ বরণ, ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনে পুলিশের কড়াকড়ি,আবারও প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা, সম্পাদক হলেন শ্যামল ,নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে কুয়াকাটায় পর্যটকের ঢল

ঈদে বাজারে আসছে ৩০ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১
  • ১৩৭ বার পঠিত

ডেস্ক রিপাের্ট :: আসন্ন ঈদে গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী নতুন নোট বাজারে ছাড়ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এবার ৩০ হাজার কোটি টাকার বেশি নতুন নোট বাজার ছাড়ার প্রস্তুতি নিয়েছে আর্থিক খাতের এই রেগুলেটরি সংস্থাটি। বুধবার (১৪ জুলাই) কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট সূত্র এসব তথ্য জানিয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, বছরের সব সময়ই নতুন নোট ছাপানো হয়। তবে ঈদের আগে নতুন নোটের চাহিদা বে‌শি থাকায় ছাপানোর পরিমাণও বাড়াতে হয়। কোরবা‌নি দেওয়ার জন্য অনেকে পশু কিনবে। এতে নগদ টাকার লেনদেন বাড়বে। বিষয়টি মাথায় রে‌খে নতুন নোট ছাড়া হচ্ছে। ২, ৫, ১০, ২০, ৫০, ১০০, ২০০, ৫০০ এবং ১০০০ টাকার সব নোটই ছাপানো আছে।

তবে কোরবা‌নি‌তে পশু কেনাবেচায় বড় অংকের লেনদেন বে‌শি হয়। তাই এবার ১০০, ২০০, ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বে‌শি ছাড়া হচ্ছে। পাশাপাশি আগের মতোই সমপরিমাণ পুরাতন নোট বাজার থেকে অপসারণ করা হবে। ৩০ হাজার কোটি টাকার বেশি নতুন নোট সরবরাহ করতে প্রস্তুতি রয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের। চাহিদা অনুযায়ী নতুন নোট সরবারহ সম্ভব বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও ভারপ্রাপ্ত মুখপাত্র একেএম মহিউদ্দিন আজাদ বলেন, চাহিদা-সরবরাহ নীতি অনুসরণ করে বাংলাদেশ ব্যাংক সারাবছর বাজারে নোট সরবরাহ করে। করোনার কারণে এবার নির্ধারিত কোনো লক্ষ্য নেই। তবে ব্যাংকগুলোর চাহিদা অনুযায়ী নোট সরবরাহ করা হবে। অর্থাৎ বাংলাদেশ ব্যাংকের কাউন্টারের মাধ্যমে কোনো টাকা দেওয়া হবে না। বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো যে চেক নিয়ে আসবে সে অনুযায়ী আমরা টাকা দেবো।

তিনি জানান, বিধিনিষেধের কারণে ব্যাংকের লেনদেনের সময় কম। ঈদের আর কয়েকদিন ব্যাংক খোলা থাকবে। এ সময় লক্ষ্য ঠিক করে নোট দেওয়া সম্ভব না। আমাদের পর্যাপ্ত নতুন নোট দেওয়ার প্রস্তুতি রয়েছে। চাহিদা অনুযায়ী সরবরাহ করা হবে।

এদিকে গত বছর ঈদুল আজহায় ২৫ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট ছাড়ার প্রস্তুতি থাকলেও ২২ হাজার কোটি টাকার মতো নতুন ছাড়া হয়। আর গেল ঈদুল ফিতরে ১৪ হাজার নতুন নোট বাজারে ছাড়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..