1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:১৯ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

ত্বকের হারানো ঔজ্জ্বল্য ফিরে পেতে যা করবেন!

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৮ আগস্ট, ২০২১
  • ২৭১ বার পঠিত

লাইফস্টাইল ডেস্ক : প্রতিটি মানুষের বয়স বাড়ার সাথে সাথে ত্বকেরও বয়স বাড়ে। শরীরে মেদ জমে, ত্বক হারায় তার স্বাভাবিক ঔজ্জ্বল্য। দুশ্চিন্তা, অনিদ্রা, বিরূপ আবহাওয়ায় ত্বকের অবস্থা হয়ে পরে নাজেহাল। সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মির ক্ষতিকর প্রভাবে অনেকের মুখের মধ্যে কালচে দাগ-ছোপ পড়ে যায়। চোখের নিচে তৈরি হয় ডার্ক সার্কেল।

ত্বকের হারানো ঔজ্জ্বল্য কি ফিরে পেতে চান

কিন্তু কয়েকটি বিষয় মেনে চললেই ফিরে পেতে পারেন কৈশোরের সেই সুন্দর, উজ্জ্বল ও লাবণ্যময় ত্বক। এক্ষেত্রে কসমেটিকসের ব্যবহারই সব নয়। প্রতিদিনের জীবনযাপনে পরিবর্তন এবং ভালো কিছু অভ্যাসই এক্ষেত্রে বেশি কাজে লাগে। আজকাল অনেক ফর্সা হওয়ার ক্রিম বিক্রি হয়। কোনো ক্রিমই কিন্তু রাতারাতি ফর্সা করতে পারে না। চটকদারি বিজ্ঞাপনে বিভ্রান্ত হবেন না।কৈশোরের ত্বকের ঔজ্জ্বল্য ফিরে পেতে মেনে চলুন কয়েকটি সহজ অভ্যাস। এক মাসেই সুন্দর প্রভাব দেখতে পাবেন আপনার ত্বকে। জেনে নিন সেগুলো কী কী।

প্রতিদিন কমপক্ষে ৩ থেকে ৪ লিটার পানি পান করুন।

ব্যস্ততা যতই থাকুক, ৮ ঘণ্টা ঘুমানোর চেষ্টা করুন।

প্রতিদিন যেকোনো মৌসুমী ফল খাওয়ার চেষ্টা করুন। পারলে দুটি খেতে পারেন। পাতিলেবুর শরবত পান করলে উপকার পাবেন।

খাদ্যতালিকায় রাখুন প্রচুর শাকসবজি।

ঘরেই হোক রূপচর্চা

রোদের জন্য ত্বকের অনেক ক্ষতি হয়। তাই বাইরে বের হলে অবশ্যই ছাতা, সানগ্লাস ও সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে পারনে।

সপ্তাহে ১-২ দিন স্ক্রাব করলে ত্বকের ডেড সেলগুলো উঠে যাবে। তাই সময় ও সুযোগ পেলে স্ক্রাব করুন।

ঘুম থেকে উঠে, বাইরে থেকে এসে এবং রাতে ঘুমের আগে- মোট এই তিনবার ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নেবেন। মুখ ধোওয়ার পর অবশ্যই কোনো হালকা ময়েশ্চরাইজার ব্যবহার করুন।

ত্বকের হারানো ঔজ্জ্বল্য কি ফিরে পেতে চান

নিয়মিত শরীরচর্চা করুন। না পারলে প্রতিদিন ৩০ থেকে ৪০ মিনিট হাঁটার চেষ্টা করুন। হাঁটার সময় রক্তের ইনসুলিন ও গ্লুকোজ ক্ষয় হয়। ফলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রিত থাকে। সকালে হাঁটলে বাতাস থেকে অক্সিজেন সংগ্রহ করে হৃৎপিন্ড রক্তকে বিশুদ্ধ করে এবং অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত মস্তিষ্কে সরবরাহ করে। ফলে মস্তিষ্ক সচল থাকে এবং স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি পায়। এছাড়া হাঁটলে প্রচুর পরিমাণে ঘাম হয়। এতে ত্বকের লোমকূপগুলো খুলে যায় এবং শরীরের দূষিত পদার্থগুলো ঘামের মাধ্যমে বের হয়ে যায়। ফলে ত্বক উজ্জ্বল ও লাবণ্যময় দেখায়।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..