1. newsmkp@gmail.com : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. info@fxdailyinfo.com : admi2017 :
  3. admin@mkantho.com : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৮:৪০ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

শ্রীমঙ্গলে দর্শনীয় স্থানগুলোতে দর্শণার্থীদের ভিড় ভ্রাম্যমান আদালতের অর্থদন্ড

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৬ মে, ২০২১
  • ২৬৭ বার পঠিত

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি :: সরকারের নির্দেশনা উপেক্ষা করে ঈদ-উল-ফিতরের ছুঠিতে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের দর্শনীয় স্থানগুলোর আশপাশে স্থানীয় দর্শণার্থীদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে। এসব স্থানগুলোতে একদিকে যেমন মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি, অন্যদিকে নেই করোনাভাইরাস এর ভয় বা আতংক। এমনাবস্থায় ঈদের ২য় দিন বিকালে শহরের ভানুগাছ সড়কে দর্শণার্থীদের সমাগম রুখতে ও স্বাস্থ্যবিধি রক্ষায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়। এছাড়া থানা পুলিশের পক্ষ থেকে শহরের ভানুগাছ সড়কের ১০ নাম্বার এলাকায় ব্যারিকেড দিয়ে দর্শণার্থীদের আটকে দেয় পুলিশ।
দর্শণার্থীদের সমাগম রুখতে ও স্বাস্থ্যবিধি রক্ষায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন শ্রীমঙ্গলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নেছার উদ্দিন। এসময় শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশের একটি টিম ভ্রাম্যমাণ আদালতকে সহায়তা করেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নজরুল ইসলাম জানান, অভিযানকালে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ১৩ মামলায় ১০ হাজার ৮ শত টাকা অর্থদন্ড আরোপ ও আদায় করা হয়। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মানায় উদ্বুদ্ধ করতে ‘সুরক্ষা এলার্ট’ টিমের স্বেচ্ছাসেবকরা দিনভর প্রচারণা চালায়।
ঈদের পরের দিন শহরতলীর বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান ঘুরে ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানাযায়, ঈদের দিন বিকাল থেকেই লকডাউন চলাবস্থায় সরকারের নির্দেশনা উপেক্ষা করে ভানুগাছ রোডস্থ বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন বধ্যভূমি-৭১ এলাকায় স্থানীয় দর্শণার্থীদের ঢল নামে। এখানে হাজার হাজার মানুষের পদচারণায় মুখর থাকে ঈদের দিন বিকাল থেকে শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত। দর্শণীয় স্থানগুলোর আশপাশে গড়ে উঠা বিভিন্ন ফুসকা, চটপটি ও চায়ের দোকানগুলোতে ছিল মানুষের উপস্থিতি লক্ষণীয়। এছাড়া চা বাগানের ভিতরের প্রতিটি সড়কে ছিল দর্শণার্থীদের উপচে পড়া ভিড়।
অনেকেই ঈদুল ফিতরের আনন্দ ভাগ করে নিতে পরিবার-পরিজন এবং বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে এলাকার চা বাগান ও প্রকৃতিক সৌর্ন্দয্য উপভোগ করতে বধ্যভূমি-৭১সহ আশপাশের চা বাগানগুলোতে বেড়াতে আসেন। এছাড়া লাউয়াছড়ার আশপাশে বিভিন্ন টি স্টলগুলোতে উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিনোদন প্রেমীরা ভিড় করতে থাকেন।
স্থানীয়রা জানায়, ঈদের দিন বিকাল থেকেই হাজার হাজার নারী-পুরুষ, তরুণ-তরুণী ও শিশু-কিশোরসহ সব বয়সেরই বিনোদন প্রেমী দর্শনার্থীদের পদচারণায় ও মিলন মেলায় মুখরিত হয়ে উঠে বধ্যভূমি-৭১ এর আশপাশ। ঈদের পরের দিন দুপুরের পর থেকে বিনোদন প্রেমীর ভিড়ে পুরো ভানুগাছ রোড লোকে লোকারণ্য হয়ে উঠে। এসব এলাকায় অনেককেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাফেরা করতে দেখা যায়নি।
শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ রোববার বলেন, পবিত্র ঈদকে উপলক্ষ করে দর্শনার্থীরা যাতে একসাথে জড়ো হতে না পারে সে ব্যাপারে থানা পুলিশ আন্তরিকভাবে কাজ করছে। তিনি আরো বলেন, অলরেডি আমাদের টিম মাঠে আছে এবং এটি চলমান থাকবে।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..