1. newsmkp@gmail.com : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. info@fxdailyinfo.com : admi2017 :
  3. admin@mkantho.com : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ০৭:১৬ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
মৌলভীবাজারের ৫টি রেলওয়ে স্টেশন বন্ধ থাকায় এখন ভুতুরে বাড়ি: যাত্রী দুর্ভোগ চরমে: চুরি ও নষ্ট হচ্ছে রেলওয়ের মুল্যবান সম্পদ,নতুন বছরে দৃঢ় হোক সম্প্রীতির বন্ধন, দূর হোক সংকট: প্রধানমন্ত্রী. আজ রোববার উদযাপন হবে বই উৎসব. দুর্গম এলাকায় বিকল্প ব্যবস্থায় নতুন বই পাঠানো হবে: শিক্ষামন্ত্রী, নতুন বছরে নতুন শিক্ষাক্রম চালু হচ্ছে : শিক্ষামন্ত্রী, নতুন আশা নিয়ে মধ্যরাতে বরণ করা হবে ২০২৩ সাল, সিডনিতে আতশবাজির মধ্য দিয়ে ‘নিউ ইয়ার’ বরণ, ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনে পুলিশের কড়াকড়ি,আবারও প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা, সম্পাদক হলেন শ্যামল ,নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে কুয়াকাটায় পর্যটকের ঢল

মৌলভীবাজার ২৫০শয্যা হাসপাতাল: জাকির-শেফালী-আমিনুল সিন্ডিকেটের খুটির জোর কোথায়? প্রাক্তন প্রশাসনিক কর্মকর্তা জাকির ও শেফালীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ১৯৮৫ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: মৌলভীবাজার ২৫০শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল-এর প্রাক্তন প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ২কোটি ৮০লাখ ৩১হাজার ৫১৯টাকা মূল্যমানের অবৈধ সম্পদের মালিকানার অর্জনের অভিযোগে জন্য মামলা দায়ের করেছে।
জানা যায়, গত সোমবার বিকেলে মৌলভীবাজার ২৫০শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের প্রাক্তন প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে ২ কোটি ৮০লাখ ৩১হাজার ৫১৯টাকা মূল্যমানের সম্পদের মালিকানা অর্জনের অভিযোগে দুদকের উপ পরিচালক আলী আকবর মামলা দায়ের করেন। অভিযোগে বলা হয়, জাকির হোসেন তার দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে মোট ১কোটি ৭লাখ ৬৯হাজার ১৭১টাকা মূল্যমানের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ গোপন করেছেন। এছাড়াও তার স্ত্রী রাজধানীর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব কিডনি ডিজিজেস অ্যান্ড ইউরোলোজির নার্সিং সুপারভাইজার শেফালী বেগমের বিরুদ্ধেও একটি মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুর্নীতি দমন কমিশনে দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে তার স্ত্রী শেফালী জ্ঞাত আয়বহির্ভূত অর্জিত অর্থের উৎস ও খাতের মিথ্যা বিবরণী দেওয়ার অভিযোগে এ মামলা দায়ের করা হয়। একই অভিযোগে তার স্বামী জাকির হোসেনের বিরুদ্ধেও দুদক জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে দুদক। জাকির হোসেন মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের প্রাক্তন প্রশাসনিক কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে তিনি মানিকগঞ্জের একটি হাসপাতালে একই পদে কর্মরত আছেন। মৌলভীবাজার হাসপাতালে থাকাকালীন তার বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে ২০১৬ সালে তৎকালীন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধ সৈয়দ মহসীন আলী তাকে বদলী করেন। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, নার্সিং ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব কিডনি ডিজিজেস অ্যান্ড ইউরোলোজির নার্সিং সুপারভাইজার শেফালী বেগম অবৈধ উপায়ে অর্জিত জ্ঞাত আয়বহির্ভূত অর্থ দিয়ে এক কোটি ৯৯ লাখ ৩০ হাজার ৬২ টাকা মূল্যের সম্পদের মালিক হয়েছেন। তিনি দুদকে দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে মোট ৪৩ লাখ ৮০ হাজার ৫৬১ টাকার স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ গোপন করেছেন। এ অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১ এ মামলা দায়ের করে। এছাড়া জাকির হোসেন-এর আপন ভাই আমিনুল ইসলাম কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হিসাবরক্ষক (নিজ বেতনে) মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে কর্মরত ছিলেন। তার বিরুদ্ধেও দুর্নীতি দমন কমিশনের মাদারীপুর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে জ্ঞাত-আয় বহির্ভুত সম্পদ অর্জনসহ আরও কিছু অভিযোগের জোর তদন্ত চলছে। আমিনুল ইসলাম এখানে কর্মরত থাকাকালীন সময়ে জাকির হোসেন মৌলভীবাজার হাসপাতালের সমুদয় টেন্ডার বাণিজ্যসহ নানান দুর্নীতি-অনিয়ম কার্যক্রম পরিচালনা করতেন।
জাকির হোসেনের মৌলভীবাজার জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের দুর্নীতি কার্যক্রমের মাস্টারমাইন্ড হিসাবে আমিনুল ইসলাম কাজ করতেন। জাকির-আমিনুল সহোদরের মৌলভীবাজার হাসপাতাল ও সুনামগঞ্জ হাসপাতালে করা বড় বড় কিছু দুর্নীতি ও জালিয়াতির চাঞ্চল্যকর তথ্য, নথি-পত্র ও প্রমাণাদি এই রিপোর্টারের হস্তগত হয়েছে।
এদিকে আমিনুল ইসলাম এ বছরের শুরুর দিকে তিনি পদোন্নতি পেয়ে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পদায়িত হলেও কয়েকদিনের ভেতরেই জাকির হোসেন তার খুঁটির জোরে কুলাউড়া উপজেলা কমপ্লেক্স খালি রেখে মৌলভীবাজার ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালে একজন নিয়মিত হিসাবরক্ষক থাকা সত্ত্বেও সংযুক্তিতে পোস্টিং করিয়ে তার ভাই আমিনুলকে নিয়ে চলে আসেন। অনুসন্ধানেকালে অভিযোগ উঠেছে জাকির তার ভাই আমিনুল কে দিয়ে তার বিভিন্ন অনিয়ম ও নিজস্ব ফায়দা হাসিলের জন্য করেছেন। এদিকে শূন্য পদের সেই কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গুরুত্বপূর্ণ অফিস স্টাফের একাধিক কর্মচারী বলেন- আমিনুল চলে আসায় কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বিশালসংখ্যক ডাক্তার, নার্স, স্টাফদের বেতন-ভাতাসহ সামগ্রিক আয়ন-ব্যয়ন সংক্রান্ত দাপ্তরিক কাজ মারাত্মকভাবে ব্যহত হচ্ছে। তাদের প্রশ্ন শুন্য পদ রেখে কীভাবে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে (কর্মরত হিসাব রক্ষক থাকা) অবস্থায় বদলী করেছেন।
এ ব্যাপারে জাকির হোসেনের সাথে একাধিকবার মুঠোফোনে ঘটনা সস্পর্কে জানতে ০১৭১২১১৩৯৬৪ যোগাযোগ করলেও ফোন রিসিভ করেননি। সেই সাথে আমিনুল ইসলামকে হিসাবরক্ষক, কুলাউড়া বর্তমানে মৌলভীবাজার হাসপাতালে সংযুক্তিতে কর্মরত মুঠোফোনে ০১৭১৪৩৫৮৫৫৭ বার বার যোগাযোগ করতে চাইলে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স খালি রেখে আমিনুল ইসলামকে মৌলভীবাজার হাসপাতালে পোস্টিং দেয়ার কারণ জিজ্ঞেস করলে- সিভিল সার্জন ডা. জালাল উদ্দিন মুর্শেদ বলেন, সিলেট ডিভিশনাল অফিস কুলাউড়া থেকে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে হিসাব রক্ষক পদে সংযুক্তি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, দেশের স্বাস্থ্যখাতের কতিপয় মাফিয়া ডনদের হয়ে বর্তমানে কাজ করছেন জাকির-আমিনুল চক্র। অনুসন্ধানে জানা গেছে, পুরো সিলেট বিভাগের পুরো স্বাস্থ্যখাতে বিস্তৃত তাদের জাল। স্বাস্থ্যখাতের বেশিরভাগ কর্মকর্তা কর্মচারী এই চক্রের কাছে জিম্মি।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..