1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

ফের হাসপাতালে পেলে

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২২
  • ১৮৮ বার পঠিত

ক্রীড়া ডেস্ক :: ফুটবলের রাজা পেলেকে কোলন টিউমারে আক্রান্ত হওয়ার কারণে প্রায়ই হাসপাতালের চৌকাঠ মাড়াতে হয়। এদিকে বয়সের ভারও চেপে বসেছে তিন তিনটি বিশ্বকাপ জয়ী এই ফুটবল কিংবদন্তির শরীরে।

মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) সাও পাওলোর আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতাল এক বিবৃতিতে জানায়, পেলে ফের হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ।

কোলন টিউমারের সঙ্গে বেশ আগে থেকেই লড়াই করছেন পেলে। এই রোগের চিকিৎসার জন্যই সোমবার (১৮ এপ্রিল) আবারো হাসপাতালে ফিরতে হয় তিনবার বিশ্বকাপজয়ী ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তিকে। তবে ৮১ বছর বয়সী পেলে শারীরিকভাবে এখন সুস্থবোধ করছেন বলে জানানো হয়েছে সেই বিবৃতিতে।

আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালের সে বিবৃতিতে পেলের আসল নাম ব্যবহার করে তার হাসপাতালে ভর্তির বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। তর্কসাপেক্ষে সর্বকালের সেরা ফুটবলার পেলের প্রকৃত নামক এডসন অরান্তেস দো নাসিমেন্তো। ১৯৫৮ সালে ১৭ বছর বয়সে প্রথম বিশ্বকাপ জয় করা পেলে এরপর ১৯৬২ ও ১৯৭০ সালের বিশ্বকাপ জয় করেন।

মূলত কোলন টিউমারের চিকিৎসা নিতেই প্রতি মাসে হাসপাতালে যেতে হয় পেলের। এ দফায়ও তাকে কিছুদিন হাসপাতালে অবস্থান করতে হবে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

৮১ বছর বয়সী পেলের কোলনে টিউমার ধরা পড়ে ২০২১ সালে। সে বছরেই সেপ্টেম্বরে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয় ফুটবলের রাজাকে। ৪ সেপ্টেম্বর অপারেশনের মাধ্যমে তার টিউমারটি বাদ দেওয়া হয়। তারপর থেকেই প্রতিমাসেই কেমোথেরাপি নিতে হচ্ছে তাকে। বয়সের ভারে পেলে এখন আর একা চলতে পারেন না। হুইলচেয়ারের সাহায্য নিয়ে চলাফেরা করতে হয় তাকে। তবে পেলে মানসিকভাবে এখনো বেশ শক্ত আছেন।

গত ফেব্রুয়ারিতেও সাও পাওলোর অ্যালবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন ৮১ বছর বয়সী সাবেক এই ফুটবল তারকা। নিয়মিত কেমোথেরাপি নেওয়ার জন্যই ১৩ ফেব্রুয়ারি সাও পাওলোর আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। সেখানে পরীক্ষায় দেখা যায় ,মূত্রনালির সংক্রমণে আক্রান্ত হয়েছেন পেলে। চিকিৎসার উদ্দেশ্যে তখন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে বাড়ি ফিরতে দেননি। দুই সপ্তাহ হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে এবার তাকে বাড়ি ফেরার অনুমতি দিল সাও পাওলোর আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

কোলন টিউমার ছাড়াও পেলে ভুগছেন আরো অনেক স্বাস্থ্য সমস্যাতেও। ২০১৯ সালে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে পেলের কিডনির পাথর অপসারণ করা হয়। গত জানুয়ারিতে পেলেকে নিয়ে দুঃসংবাদ জানিয়েছিল সংবাদমাধ্যম ইএসপিএন-‘তার যকৃতে টিউমার ধরা পড়েছে এবং ফুসফুসেও আরেকটি টিউমার বেড়ে উঠছে।’

এ ছাড়াও হাঁটাচলার অসুবিধায় কোমরে অস্ত্রোপচারও করিয়েছেন পেলে।

 

 

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..