1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৩:০৪ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

মৌলভীবাজার বড়লেখায় মামার প্রতারনার নি:স্ব প্রবাসী ভাগনা: স্ত্রীকে মামার লালসার হাত থেকে বাঁচাতে পালিয়ে বেড়াচ্ছে

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৭ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৩৮০ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার :  মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলায় আপন কাতার প্রবাসী ভাগনাকে আত্মীয়তার সম্পর্ক ব্যবহার করে দেশে সম্পদ ক্রয় করার লোভ দেখিয়ে এবং ভিন্ন সময়ে প্রতারনা মূলক মিথ্যা কথা বলে টাকা ও স্বর্ণ আত্মসাৎ করে নিঃস্ব করে দিয়েছেন। এভাবে প্রায় ৭০ লাখ টাকা আত্নসাৎ করেছেন। এমনকি ভাগনার স্ত্রীকে কুপ্রস্তাব দিলে ভাগনার স্ত্রী রাজি না হওয়ায় চক্রান্ত করে বাড়ি থেকে বেড় করে দেওয়া সহ খুন করার হুমকি দিচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে মামা কামাল উদ্দিনের উপর। এব্যাপারে আইনি সাহায্য চেয়ে মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার বরাবরে অভিযোগ করেছেন প্রবাসী ভাগনা লুলু মিয়া। অভিযোগে জানাযায়, বড়লেখা উপজেলার ঘোলসা গ্রামের প্রবাসী লুলু মিয়া বিগত ১৯৯৯ সাল থেকে কাতারে আছেন। একি উপজেলার ঘোলসা গ্রামের আপন মামা কামাল উদ্দিন তার আপন মামা হওয়ার সুবাদে বিদেশ থেকে টাকা প্রেরনের জন্য তাকে জোরালো পরামর্শ দেন। উক্ত টাকা দিয়ে দেশে লুলু মিয়া নামে সম্পদ ক্রয় করার পরামর্শ দেন। কামাল উদ্দিন আপন মামা হওয়ায় তাহার কথা সরল মনে বিশ্বাস করে ভিন্ন ভিন্ন তারিখে বিদেশ হইতে ৫২ লাখ টাকা প্রদান করেন। কামাল উদ্দিন টাকা পেয়ে কোন সম্পদ ক্রয় না করে টাকাগুলো আত্মসাৎ করেন। অন্যত্র ভালো জমি ক্রয় করার কথা বলে মৌরসী সূত্রে প্রাপ্ত ৩৩ শতক ভূমি যাহার মালিক দুই ভাই ও পাঁচ বোন তা আপন দুই চাচার নিকট মৌখিকভাবে বিক্রি করে দখল দিয়ে ৫ লাখ টাকা গ্রহন করেন। লুলু মিয়ার নিজ নামে ক্রয়কৃত ১৮ শতক ভূমি ৪ লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকায় বিক্রি করেন। মামা কামাল উদ্দিন মেয়ের বিয়েতে দেওয়ার জন্য সে সময়ের ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা মূল্যের ৫ ভরি ওজনের হাতের স্বর্নের রুল ভাগনা লুলু মিয়ার নিকট থেকে নেন। পরবর্তীতে উক্ত টাকা পরিশোধ না করে আত্মসাৎ করেন। এছাড়াও তার স্ত্রী ৩ ভরি ওজনের ১ লাখ ৫০ হাজার টাকার কানের দুল নিজ হেফাজতে নিরাপদে রাখার কথা বলে আত্মসাৎ করেন। কামাল মিয়ার ভাগিনা আব্দুল কাইয়ুমকে ৪ লাখ খরচ করে কাতারে নেন লুলু মিয়া। এই টাকাও আত্নসাৎ করেন মাম কামাল উদ্দিন। প্রবাসী লুলু মিয়ার স্ত্রীর সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়িয়া তোলার জন্য চেষ্টা করে তার কুপ্রস্তাব প্রত্যাখান করায় কৌশলে ভিন্ন পরিবেশ তৈরি করে প্রবাসীর ভাই ও ভাইয়ের স্ত্রীকে দিয়ে অত্যাচার শারীরিক নির্যাতন ও চক্রান্ত করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। এমনকি এসব বিষয় নিয়ে মামলা মোকদ্দমা করলে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছেন। মামার প্রতারনার স্বীকার নি:স্ব প্রবাসী লুলু মিয়া জীবন বাঁচাতে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..