1. [email protected] : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. [email protected] : admi2017 :
  3. [email protected] : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
বিনোদন :: গান গাইতে গাইতে মঞ্চেই গায়কের মর্মান্তিক মৃত্যু!,  খেলার খবর : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, বিমানবন্দরে যুবাদের জানানো হবে উষ্ণ অভ্যর্থনা,

দেশে মাঙ্কিপক্স আক্রান্ত কোনো রোগী নেই : স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৭ জুন, ২০২২
  • ১৭২ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্ট :: দেশে এখনও পর্যন্ত কেউ মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হয়নি বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার দুপুরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে লেখা হয়েছে- লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমসহ দেশের বেশকিছু অনলাইন ও ইলেকট্রনিক সংবাদ মাধ্যমে ‘দেশে বিদেশী একজন নাগরিকের দেহে মাঙ্কিপক্সের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে’ সংক্রান্ত যে তথ্যটি প্রচার হচ্ছে সে তথ্যটি সঠিক নয়। দেশে মাঙ্কিপক্সে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যক্তি আক্রান্ত হননি। ভবিষ্যতে কোনো ব্যক্তির আক্রান্তের ঘটনা কখনো ঘটলে তা প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হবে। এই মুহূর্তে দেশে মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত কোনো ব্যক্তি নেই।

তবে দুপুরে মাঙ্কিপক্স আক্রান্ত সন্দেহে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে এক তুর্কি নাগরিককে মহাখালীর সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বিমানবন্দরের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ এ তথ্য নিশ্চিতও করেছেন।

শাহরিয়ার সাজ্জাদ জানান, ওই ব্যক্তির শরীরের বিভিন্ন অংশে মাঙ্কিপক্সের কিছু উপসর্গ দেখা গেছে। সেগুলো পরীক্ষা করার জন্য তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তবে ওই ব্যক্তি মাঙ্কপক্সেই আক্রান্ত হয়েছেন নিশ্চিত করে এমন তথ্য কেউ দেয়নি।

টার্কিশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে ওই ব্যক্তি আজ (মঙ্গলবার) দুপুর ২টায় বাংলাদেশে পৌঁছান। বিমানটিতে মোট ২১৬ জন যাত্রী ছিলেন। তাদের বিষয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। তবে বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে মনিটরিং করছে টার্কিশ এয়ারলাইন্স।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে টার্কিশ এয়ারলাইন্সের এক কর্মকর্তা ঢাকা পোস্টকে বলেন, ওই ব্যক্তি আদৌ মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত কি না তা এখনো নিশ্চিত নয়। যে ফ্লাইটটিতে ওই ব্যক্তি ঢাকায় এসেছেন সেটিতে মোট ২১৬ জন যাত্রী ছিলেন। আমরা সেই ফ্লাইটের যাত্রীদের নামের তালিকা, ফোন নম্বর ও যোগাযোগের অন্যান্য তথ্য সংগ্রহ করেছি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে যদি এগুলো চাওয়া হয় তাহলে আমরা সেগুলো তাদের দেব। এছাড়াও যদি ওই যাত্রীর মাঙ্কিপক্স শনাক্ত হয় সেক্ষেত্রে অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী ফ্লাইটের অন্যান্য যাত্রীদেরও নির্দেশনা দেওয়া হবে।

ওই কর্মকর্তা আরও জানান, ওই যাত্রীর বিষয়ে টার্কিশ এয়ারলাইন্স তুরস্কের দুইজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলেছে। তারা জানিয়েছেন, এটা এক ধরনের দাদ রোগ। তুরস্কে অনেকের মধ্যেই এই রোগ রয়েছে। তাছাড়া ওই ব্যক্তির হাত, পা এবং মাথায় চুলের নিচে এই দাদের মতো চিহ্ন দেখা গেছে। মাঙ্কিপক্স সাধারণত মাথার চুলের নিচের হওয়ার কথা নয়।

 

 

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..