1. newsmkp@gmail.com : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. info@fxdailyinfo.com : admi2017 :
  3. admin@mkantho.com : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৭:৩৭ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
মৌলভীবাজারের ৫টি রেলওয়ে স্টেশন বন্ধ থাকায় এখন ভুতুরে বাড়ি: যাত্রী দুর্ভোগ চরমে: চুরি ও নষ্ট হচ্ছে রেলওয়ের মুল্যবান সম্পদ,নতুন বছরে দৃঢ় হোক সম্প্রীতির বন্ধন, দূর হোক সংকট: প্রধানমন্ত্রী. আজ রোববার উদযাপন হবে বই উৎসব. দুর্গম এলাকায় বিকল্প ব্যবস্থায় নতুন বই পাঠানো হবে: শিক্ষামন্ত্রী, নতুন বছরে নতুন শিক্ষাক্রম চালু হচ্ছে : শিক্ষামন্ত্রী, নতুন আশা নিয়ে মধ্যরাতে বরণ করা হবে ২০২৩ সাল, সিডনিতে আতশবাজির মধ্য দিয়ে ‘নিউ ইয়ার’ বরণ, ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনে পুলিশের কড়াকড়ি,আবারও প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা, সম্পাদক হলেন শ্যামল ,নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে কুয়াকাটায় পর্যটকের ঢল

‘৩০০ টাকা মজুরি দে, নইলে বুকে গুলি দে’

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২১ আগস্ট, ২০২২
  • ৬৮ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্ট : ১২০ টাকা থেকে মজুরি বৃদ্ধি করে ৩০০ টাকা করার দাবিতে চা শ্রমিকরা গত ৮ আগস্ট থেকে কর্মসূচি চালিয়ে আসছেন। এরপর ১৩ আগস্ট থেকে তারা অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটে রয়েছেন। আজ ধর্মঘটের নবমদিন।

এখন শ্রমিকরা নিজেদের দাবি আদায়ে মরিয়া হয়ে ওঠছেন। তারা মহাসড়ক অবরোধ করছেন। আবার নিজেদের গায়ে ‘চরম বার্তা’ সম্বলিত স্লোগানও লিখছেন।

আজ রোববার শ্রমিকদের গায়ে ‘৩০০ টাকা মজুরি দে, নইলে বুকে গুলি দে’ স্লোগান লিখা দেখা গেছে।

সিলেট শহরতলির লাক্কাতুরা এলাকায় চা শ্রমিকদের বিক্ষোভে এমন স্লোগান ছিল শ্রমিকদের মুখেও।

এ ছাড়া ‘বাঁচার মতো বাঁচতে চাই, ৩০০ টাকা মজুরি চাই’ ‘জাগো রে জাগো, চা শ্রমিক জাগো’ ‘২০-৩০ মানি না, ৩০০ না হলে বুঝি না’ প্রভৃতি স্লোগানও দেন চা শ্রমিকরা। বেশ কিছু যুবকের গায়ে এমন স্লোগান লিখাও ছিল।

একপর্যায়ে শ্রমিকরা বিমানবন্দর সড়ক অবরোধ করেন। এতে সড়কের উভয় পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ মানুষ। পরে জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরীর আশ্বাসে বেলা দেড়টার দিকে শ্রমিকরা অবরোধ থেকে সরে যান।

এদিকে, শান্তিপ্রিয় বলে পরিচিত চা শ্রমিকদের আন্দোলনে ‘চরমপন্থামূলক’ স্লোগান কিভাবে জায়গা পেল, তা নিয়ে খোদ চা শ্রমিক নেতাদের মধ্যেই বিস্ময় কাজ করছে। সুশৃঙ্খল আন্দোলনকে বিশৃঙ্খল করে সংঘাত বাঁধাতে বাইরে থেকে কেউ ইন্ধন দিচ্ছে বলেও শঙ্কা প্রকাশ করেছেন একাধিক শ্রমিক নেতা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে শ্রীমঙ্গলের বালিশিরা ভ্যালির এক শ্রমিক নেতা বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যেখানে আশ্বাস দিয়েছেন, সেখানে আন্দোলন স্থগিত করাটাই ছিল সবচেয়ে উত্তম। কিন্তু আমরা স্থগিত করতে চাইলেও কোনো একটি পক্ষ তা চাইছে না। এখানে বাইরের ইন্ধন ঢুকে গেল কিনা, তা নিয়ে আমরা এখন শঙ্কায় পড়ে গেছি।’

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..