1. newsmkp@gmail.com : Admin : sk Sirajul Islam siraj siraj
  2. info@fxdailyinfo.com : admi2017 :
  3. admin@mkantho.com : Sk Sirajul Islam Siraj : Sk Sirajul Islam Siraj
  • E-paper
  • English Version
  • শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:১২ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
* বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শনে সিলেটে প্রধানমন্ত্রী   *  বন্যা নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই, সরকার সব ব্যবস্থা নিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

‘২০১১ সাল থেকে জরায়ু সমস্যার সঙ্গে লড়াই করছি’

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৭ মে, ২০২১
  • ১৪৩ বার পঠিত

বিনোদন ডেস্ক: অভিনেত্রী সুমনা চক্রবর্তী। টেলিভিশন নাটকের দর্শক তাকে এক নামেই চেনেন। বিশেষ করে ‘দ্য কপিল শর্মা শো’-এ অংশ নেওয়ার পর তার জনপ্রিয়তা বহুগুণে বেড়ে যায়। কমেডি চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে মানুষকে হাসাতে দেখা যায় তাকে।

ইনস্টাগ্রামে এক পোস্টে এই অভিনেত্রী বিপর্যস্ত সময় পার করছেন বলে জানিয়েছেন। করোনার কারণে দ্য কপিল শর্মা শো’ বন্ধ থাকায় কাজহীন সময় কাটাচ্ছেন এবং লকডাউনে মারাত্মক ‘মুড সুয়িং’ সমস্যায় ভুগছেন। ইনস্টাগ্রামে সুমনা লিখেছেন, ‘আমি হয়তো এখন বেকার কিন্তু তারপরও আমার পরিবার এবং নিজের ভরণপোষণ করতে সক্ষম। ৩২ বছর বয়সি এই অভিনেত্রী লকডাউনের মধ্যে যে বিচিত্র অনুভূতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন, তা মন খুলে ভক্তদের কাছে  প্রকাশ করেছেন ইনস্টাগ্রামে দীর্ঘ একটি পোস্টে।

নারীদের নীরব এক কষ্টের নাম জরায়ু রোগ ‘এন্ডোমেট্রিওসিস’। এ রোগে জরায়ুর সবচেয়ে ভেতরের স্তরের এন্ডোমেট্রিয়াম কোষ জরায়ুর বাইরে বৃদ্ধি পায়। ইনস্টাগ্রামে সুমনা লিখেছেন, ‘এমন কিছু আছে যা আমি আগে কখনো শেয়ার করিনি। আমি ২০১১ সাল থেকে এন্ডোমেট্রিওসিস রোগে ভুগছি। গত কয়েক বছর ধরে এই রোগের চতুর্থ স্টেজের সঙ্গে লড়াই করছি। স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস, ব্যায়াম এবং মানসিক চাপহীন থাকা আমার ভালো থাকার চাবিকাঠি। কিন্তু লকডাউন মানসিকভাবে বড় চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। তার আগে কাজের মধ্যে দিয়ে ভালো ছিলাম।দীর্ঘ পোস্টে সুমনা আরো লিখেছেন, ‘আমার অনুভূতিগুলো শেয়ার করেছি এটা বোঝানোর জন্য যে, চক চক করলেই সোনা হয় না। আমরা সবাই আমাদের জীবনে কিছু না কিছু নিয়ে লড়াই করছি। আমাদের সবার লড়াই করার জন্য নিজস্ব লড়াই রয়েছে। যা পরাজয়, বেদনা, শোক, মানসিক চাপ ঘেরা। আপনার জন্য যা প্রয়োজন তা হলো ভালোবাসা, সহমর্মিতা এবং উদারতা। নিজের এ ধরনের ব্যক্তিগত ব্যাপার খোলাসা করাটা আমার জন্য মোটেও সহজ ছিল না। এটার জন্য আমাকে নিজের কমফোর্ট জোন থেকে বের হয়ে আসতে হয়েছে। তবে আমার এই পোস্ট যদি করো মধ্যে অনুপ্রেরণা জাগাতে পারে, তাহলে অনুমান করি এটি মূল্যবান একটি পোস্ট হবে।

প্লিজ আপনি ও অপরকে নিউজটি শেয়ার করার জন্য অনুরোধ করছি

এ জাতীয় আরো খবর..